Home » প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে যাচ্ছেন শুক্রবার

প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে যাচ্ছেন শুক্রবার

0 মন্তব্য 17 ভিউজ

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে রাষ্ট্রীয় সফরে শুক্রবার (২১ জুন) নয়াদিল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দ্বিপাক্ষিক এ সফর উপলক্ষে শুক্র ও শনিবার তিনি সেখানে অবস্থান করবেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।
সফরে শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নয়াদিল্লির ফোরকোর্টে রাষ্ট্রপতি ভবনে আনুষ্ঠানিক সংবর্ধনা দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র সালাম গ্রহণ ও গার্ড অব অনার পরিদর্শন করবেন। এ সময় দুই দেশের জাতীয় সংগীত বাজানো হবে। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধীর সমাধিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন।
একই দিন হায়দ্রাবাদ হাউসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে একান্ত বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিনিধি পর্যায়ে আলোচনা এবং দুই দেশের মধ্যে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) ও চুক্তি বিনিময় অনুষ্ঠিত হবে সেখানে। এরপর সেখানে দুই নেতার প্রেস বিবৃতি আয়োজন করা হবে। এছাড়া বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে রাষ্ট্রীয় মধ্যাহ্নভোজ আয়োজনের কথা রয়েছে সেখানে।
এদিকে সফরের প্রথম দিন শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবাসস্থলে তাঁর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করবেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস. জয়শঙ্কর। শনিবার বিকেলে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখারের সঙ্গে তাঁর সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাক্ষাত করবেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবনে যাবেন। সেখানে রাষ্ট্রপতি মিজ দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত সাক্ষাত অনুষ্ঠিত হবে।
প্রধানমন্ত্রীর দুই দিনের সফরে নরেন্দ্র মোদির সাথে আনুষ্ঠানিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়াও দুই দেশের মধ্যে অনেকগুলো বাণিজ্য, অর্থনৈতিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে বলে জানা গেছে।
বাংলাদেশ ভারতের কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি যে বিষয়গুলো চাইবে তার মধ্যে আছে প্রথমত, অর্থনৈতিক সহযোগিতা। বাংলাদেশ তার অর্থনৈতিক উন্নয়নে এককভাবে চীন নির্ভরতা কমাতে চায়। চীন নির্ভরতার পাশাপাশি অন্যান্য দেশগুলোর সঙ্গে উন্নয়ন অংশীদারিত্বে সম্পর্ক বৃদ্ধি করতে চায়। ধারণা করা হচ্ছে এবার বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন এবং অর্থনৈতিক পুনর্গঠনের জন্য ভারত একটি সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা করবে এবং দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের পরপর এই সহায়তা প্যাকেজ আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ছাড়াও এই সফরে তার তিস্তার পানি চুক্তি এবং অন্যান্য অভিন্ন নদীগুলোর পানি বণ্টনের বিষয়টি আলোচনায় আসতে পারে।
তিস্তার পানি চুক্তির বিষয়টি নিয়ে এখন বাংলাদেশ আগের চেয়ে অনেক সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। বাংলাদেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনার বিকল্প দাঁড় করিয়ে ফেলেছে এবং শেষ পর্যন্ত যদি তিস্তার পানি চুক্তি স্বাক্ষর করা ভারতের পক্ষে সম্ভব নাও হয় তাহলে বাংলাদেশ তিস্তা মহাপরিকল্পনা নিয়ে এগোবে। এ ব্যাপারে এবারের সফরে ভারতের কাছ থেকে একটি সবুজ সঙ্কেত বাংলাদেশ প্রত্যাশা করবে।
ভিসা সহজীকরণ বিষয়টি নিয়ে দুই দেশের মধ্যে দীর্ঘদিন আলাপ আলোচনা হচ্ছে। এবারের সফরে ভিসা সহজীকরণের বিষয়ে একটি নাটকীয় ঘোষণা আসতে পারে বলে একাধিক কূটনৈতিক সূত্র আভাস দিয়েছে। অন্যদিকে ভারত-বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য একটি প্রস্তাব দিতে পারে। এই প্রস্তাবে বাংলাদেশ ইতিবাচকভাবে সাড়া দেবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।
ইতোমধ্যে বাংলাদেশ ভারতকে ট্রানজিট সুবিধা দিয়েছে। ভারতীয় পণ্য বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে শুল্ক প্রদান সাপেক্ষে প্রবেশ করছে। এটি দুই দেশের জন্য লাভজনক হয়েছে। তাছাড়া বাংলাদেশ তার পূর্ব ঘোষিত নীতি অনুযায়ী ভারতীয় বিচ্ছিন্নতাবাদীদের জন্য বাংলাদেশের দরজা বন্ধ করে দিয়েছে। বাংলাদেশের ভূখন্ড বিচ্ছিন্নতাবাদীদের জন্য ব্যবহৃত হতে দেওয়া হচ্ছে না। তবে এবারের সফরে সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ দিক হবে সম্ভবত বিশ্ব উত্তেজনা এবং বিভক্ত বিশ্বে দুটি প্রতিবেশী দেশের অবস্থান। বাংলাদেশ এবং ভারত দুটি শান্তিকামী দেশ এবং বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট আলোচনা করবে। বিশেষত মধ্যপ্রাচ্য এবং রাশিয়া-ইউক্রেন ইস্যুতে দুদেশের অবস্থান নিয়ে নতুন করে পর্যালোচনা করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, ভারতে রাষ্ট্রীয় সফরে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সফরসঙ্গী দল শুক্রবার বেলা দুইটায় বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে পালাম বিমানবন্দরের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবেন। দু’দিনের এ সফর শেষে শনিবার স্থানীয় সময় বিকেল ৬টায় বাংলাদেশ বিমানের বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশে নয়াদিল্লির পালাম বিমানবন্দর ত্যাগ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আরও পড়ুন

মতামত দিন


The reCAPTCHA verification period has expired. Please reload the page.

আমাদের সম্পর্কে

We’re a media company. We promise to tell you what’s new in the parts of modern life that matter. Lorem ipsum dolor sit amet, consectetur adipiscing elit. Ut elit tellus, luctus nec ullamcorper mattis, pulvinar dapibus leo. Sed consequat, leo eget bibendum Aa, augue velit.